দ্বিজেন শর্মার শিশু ভাবনা

মোকারম হোসেন

দ্বিজেন শর্মার প্রায় সব ভাবনার মধ্যেই শিশুরা     প্রবলভাবে উপস্থিত রয়েছেশিশুর মতোই সরল মনে তিনি জগৎ ও জীবনের সব সৌন্দর্যকে দেখতে চানতাঁর সকল সৃষ্টি ও গবেষণা এবং প্রাত্যহিক কর্মকাণ্ডে এই ভাবনাই বারবার ফুটে ওঠে শিশুর মনে স্বপ্ন জাগানিয়া অন্য এক দ্বিজেন শর্মার প্রতিকৃতি তুলে ধরছেন মোকারম হোসেন...

অধ্যাপক দ্বিজেন শর্মার সঙ্গে আমার পরিচয় পর্বটা খুবই স্মরণীয়একদিন অভ্যাসবশত ঘুরে ঘুরে রমনা পার্কের গাছপালা দেখছি, ছবি তুলছিহঠাৎ দেখি একজন দলপতির পেছনে কয়েকজন তরুণ-তরুণী ছুটছেপুরো দলটি ছুটে ছুটে এ-গাছ থেকে ও-গাছে যাচ্ছেদলপতি প্রতিটি গাছের নিচে ঋজু ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে কোমল কণ্ঠে গাছটির বর্ণনা দিচ্ছেনতাঁর শুভ্র কেশের সঙ্গে নিষ্পাপ চেহারায় অদ্ভুত এক দ্যুতি ছড়ানো ছিলআমার মনে হলো কোনো এক দেবদূত গাছের ছায়ায় দাঁড়িয়ে ঈশ্বরের অপূর্ব সৃষ্টি সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করছেন মন্ত্র-মুগ্ধের মতো এগিয়ে গেলামমিশে গেলাম বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের এই তরুণ শিক্ষার্থী দলটির সঙ্গেসবার সঙ্গে গোটা পার্কটিই ঘুরে বেড়ালামকাগজ-কলম বের করে প্রয়োজনীয় নোট নিলামসন্ধ্যা ঘনিয়ে আসতেই দলপতি অধ্যাপক দ্বিজেন শর্মা প্রকৃতির পাঠশালার সমাপ্তি ঘোষণা করলেনএতক্ষণে তাঁর সঙ্গে আমার কথা বলার সুযোগ তৈরি হলোশুধু নাম বললে আমাকে চেনার কোনো কারণ নেই তাই কর্মস্থলের নাম ও আমার বৃক্ষপ্রীতির কথাও জানালামমৃদু হেসে বললেন, খুবই ভালো কথা, আমার ফোন নম্বরটা রাখো, যোগাযোগ করবে এই সংক্ষিপ্ত পরিচয়ের সূত্র ধরেই শুরুতাঁর প্রকৃতি বিজ্ঞানের পাঠশালায় আজীবন ছাত্র হিসেবে যোগ দিলামএমন শিক্ষক, অবিভাবক ও বন্ধুর দুর্লভ সান্নিধ্য আর কোথাও পাইনি, পাবো বলেও মনে হয় নাতার অফুরন্ত ভাণ্ডার উজাড় করেই শেখাতে চান আমাদেরএমন পণ্ডিত ও উদার মানুষটির শিশুতোষ ভাবনা লিখতে বসে খানিকটা সমস্যায়ই পড়া গেলতার কর্মপরিধি এতোটাই বিস্তৃত যে কোন্টা রেখে কোন্টা বলি

দ্বিজেন শর্মার প্রায় সব ভাবনার মধ্যেই শিশুরা আছে প্রবলভাবেশিশুদের মতো সরল মনেই দেখতে চান জগতের সব সৌন্দর্যতাঁর সব সৃষ্টি, গবেষণা ও প্রাত্যহিক কর্মকাণ্ডে তা বারবারই ফুটে ওঠেতরুণ বয়সেই অধ্যাপনা ছেড়ে পাড়ি জমান সুদূর রাশিয়াতেঅনুবাদক হিসেবে যোগ দেন মস্কোর প্রগতি প্রকাশনেতাঁর অনুবাদের সুবাদে রাশিয়ার সমৃদ্ধ শিশুসাহিত্য বাংলা ভাষাভাষীদের নাগালে চলে আসেশিশুরা সেসব বই পড়ে অন্যরকম স্বাদ পেতে শুরু করেকারণ সেখানে স্বপ্ন, বাস্তবতা, ভাষার সাবলীলতা, জীবন্ত অলঙ্করণ সবকিছুই ছিল না বললেই নয় যে, সত্তর দশক থেকে যারা শিশুসাহিত্যে নিয়মিত, তারা এ বক্তব্যের সত্যতা স্বীকার করবেন রাশিয়ার এসব অনূদিত বই আমাদের শিশুসাহিত্যেও বিরাট ভূমিকা রাখে এবং শিশুসাহিত্যিকদের কল্পনার খোরাক যোগায় দীর্ঘদিনপ্রসঙ্গত ননী ভৌমিক ও ড. হায়াৎ মামুদও স্মরণীয়তাদের অনুবাদও আমাদের শিশুসাহিত্যকে নানাভাবে অলঙ্কৃত করেছে

দ্বিজেন শর্মা প্রবাস জীবনেও প্রিয় বিষয় উদ্ভিদবিজ্ঞান চর্চায় নিয়মিত ছিলেনবাসার এক চিলতে আঙ্গিনায় রচনা করেন বাগানআর অনুক্ষণ ভাবেন দেশের শ্যামলী নিসর্গের কথা; কিন্তু এসবের ফাঁকে আরেকটি ভাবনা তাকে পেয়ে বসেমস্কোয় বসবাসরত বাংলাভাষাভাষী শিশুদের পড়াশোনা হবে কী করে? সেখানকার ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলগুলো ছিল স্বল্প আয়ের বাঙালিদের নাগালের বাইরেতাছাড়া বাঙালি হয়ে বাংলা জানবে না, এও তো হতে পারে নাতাদের জন্য একটি স্কুল চাইসমমনা কয়েকজনকে নিয়ে তৈরি করলেন স্কুলএতে অবশ্য বাংলাদেশ দূতাবাসেরও সহযোগিতা ছিলদূতাবাসের কিছু জায়গা বরাদ্দ হলো স্কুলের জন্যএই স্কুলে শিক্ষক, শিক্ষার্থী সবাই ছিলেন অবৈতনিক প্রবাসে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে জড়িতরা স্বেচ্ছায় পাঠদান করতেনকঠিন নিয়মকানুনের বালাই ছিল না তিনি মনে করেন শিশুদের নিয়মের বেড়াজালে আবদ্ধ করলে তাদের সঠিক বিকাশ হয় নাতবে অত্যন্ত কৌশলে শৃঙ্খলার বিষয়টি বুঝিয়ে দিতে হবেস্কুলে আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরেও শিশুদের সৃষ্টিশীল কাজে উৎসাহ যোগানো হতোএই স্কুল চললো অনেক দিনতার এমন ভাবনাই শিশুদের প্রতি অনুরাগের কথা আমাদের স্মরণ করিয়ে   দেয়

অনুবাদকের চাকরির পাশাপাশি বিজ্ঞান চর্চায়ও তিনি নিয়মিততাঁর ভাবনাগুলো সবসময়ই পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে চেয়েছেনতা অবশ্যই দরদ মেশানো ও সুখপাঠ্যতিনিই মূলত এখানে সাহিত্যাশ্রয়ী বিজ্ঞান চর্চার অন্যতম পুরোধাউদ্ভিদবিজ্ঞানের জটিল বিষয়গুলো সাহিত্যের সুধা ঢেলে, আপন মনের মাধুরী মিশিয়ে তিনিই প্রথম উপস্থাপন করেনকিন্তু সবকিছুর আড়ালে শিশুতোষ ভাবনা উদ্দীপ্ত করে বারবারশিশুদের মনোজগৎ ছুঁয়ে তা ছড়িয়ে পড়ে আলোর পথেআজ থেকে প্রায় ২৮ বছর আগে প্রকাশিত হয় কিশোর বিজ্ঞান গ্রন্থ জীবনের শেষ নেইএ গ্রন্থের অধিকাংশ প্রবন্ধই মাসিক টাপুর টুপুর-এ প্রকাশিতছোটদের পাশাপাশি বিজ্ঞানমনস্ক পাঠকের কাছেও ব্যাপক আদৃত১১টি নাতিদীর্ঘ প্রবন্ধকে প্রবন্ধ না বলে গল্প বলাই শ্রেয়কারণ বইয়ের উপজীব্য বিজ্ঞানের আবিষ্কার, গবেষণা, ইতিহাস, সাফল্য, জীবনী সবকিছুই তিনি বলেছেন গল্পের ঢঙেজটিল তত্ত্ব, তথ্যে ভরা বিষয়কে গল্পের ছলে বলে যাওয়ার জন্যও লেখককে গল্পকার হতে হয়শিশুরা গল্প পছন্দ করেগল্প করতে করতে লেখক কখন যে মূল কথাটা বলে ফেলেছেন তা টেরই পাওয়া যায় নাতাদের পছন্দের জগতে প্রবেশ করানোই যে লেখকের উদ্দেশ্যআর তাতে সুবিধাও অনেকছোটরা একবার মজা পেলে বারবারই সে বিষয়ের প্রতি আগ্রহ দেখাবেজীবনের শেষ নেই গ্রন্থে লেখক সেই কৌশলেরই আশ্রয় নিয়েছেন আমি নিশ্চিত যেকোনো শিশুই এই বই পাঠে দ্বিধা বা বিরক্তি বোধ করেনিএখানে লেখক বরেণ্য বিজ্ঞানীদের সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে প্রকারান্তরে তাদের মনে স্বপ্নই জাগিয়েছেন

 

মস্কো বসেই তিনি দেশের সাহিত্যাঙ্গনের খবরাখবর রাখতেনলেখালেখিটাও ছিল নিয়মিতদেশে ফিরে আবার গভীরভাবে জড়িয়ে পড়েন বিজ্ঞান চর্চায়লেখালেখির সুবাদেই বাংলা একাডেমী ও শিশু একাডেমীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠেএই দুই প্রতিষ্ঠানের শিশুতোষ পত্রিকা ধান শালিকের দেশ শিশুসহ চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর থেকে প্রকাশিত মাসিক নাবারুণ পত্রিকায় নিয়মিত লিখতে শুরু করেনঅধিকাংশ লেখাতেই থাকে প্রকৃতি ও উদ্ভিদবিজ্ঞানের নানা প্রসঙ্গতার শৈশব-কৈশোর, স্কুলজীবন, প্রকৃতির রহস্যময়তা, অভিজ্ঞতা-এ এসব প্রসঙ্গই আসে বারবারশৈশব তাঁর কাছে এক সুবর্ণ অতীত যতোটা প্রাণ-প্রাচুর্যের ভেতর তারা বড় হয়েছেন, এখন ছোটদের জন্য তার ছিটেফোঁটাও নেই এ প্রসঙ্গ তিনি বারবারই নিয়ে আসেনশৈশব তাঁকে অনুক্ষণ মাতিয়ে রাখে প্রবাসে তা আরো প্রবল ও আবেগতাড়িত১৯৯৩ সালে মস্কো প্রবাসে লেখা ছোটদের একটি বইয়ের মুখবন্ধে সেই স্মৃতিকাতরতাই ফুটে ওঠে, আমি এই সুদূর প্রবাসে আমার মেয়েকে কখনো কখনো নিজের ছেলেবেলার কথা শোনাইগ্রামে বড় হয়েছিপ্রকৃতির প্রতিটি ঋতুর বর্ণ-গন্ধ-স্পন্দন আমার রক্তকণায়এ কাহিনী তাই ফুরোতে চায় না এ গল্প শেষ হয় নাফাল্গুনে অশোকমঞ্জরি সুবাসিত সকালে ফুলের সাজি হাতে বাড়ি বাড়ি ঘোরা, প্রথম বৃষ্টির পর মাটির সোঁদা গন্ধ, বৈশাখের ছায়াঘন দিন, রাতভর হাওয়ার মাতলামি, ভোরে আমকুড়োনের ধুম, বর্ষার এগিয়ে আসা ঘোলা জলে অবিরাম সাঁতার, রথের মেলার সেই আশ্চর্য বাঁশির সুর, বাদল বাউলের অবিশ্রান্ত একতারা শুনে শুনে কাঁথার ওমে ঘুমিয়ে পড়া, শরতের কাকচক্ষু বিল থেকে শাপলা তোলা... নিজে স্বপ্ন দেখেন, শিশুদের মনে স্বপ্ন জাগাতেও পছন্দ করেনশিশুরা স্বপ্নের ভেতর বড় হতে থাকলে জাগতিক মোহ-মায়া তাদের আচ্ছন্ন করতে পারে নাতখন তারা শুধু কল্যাণ ও শান্তির কথাই ভাবেতারা যদি প্রকৃতির সান্নিধ্যে বড় হয়, তখন তার প্রতি ভালোবাসা জন্মে, দায়িত্ববোধ বাড়েসমাজ গড়ার সদিচ্ছা তৈরি হয়কারণ প্রকৃতির কল্যাণের মধ্যেই আমাদের যাবতীয় কল্যাণ জড়িত এই গূঢ় সত্যটি দ্বিজেন শর্মা তাঁর কথায় ও লেখায় ছোটদের কাছে পৌঁছে দিতে চেয়েছেন বারবারতিনি মনে করেন শিশুরাই একটি আদর্শ ও কল্যাণকর সমাজ গড়ার লক্ষ্যে ভবিষ্যৎ বাতিঘর

দ্বিজেন শর্মার নিরবিচ্ছিন্ন ভাবনার অন্যতম ফসল গহন কোনো বনের ধারেএই গ্রন্থের পটভূমি বৃহত্তর সিলেটের হাওরাঞ্চললেখক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার সময়  আন্তর্জাতিক শৈবাল বিজ্ঞানী অধ্যাপক এ কে এম নুরুল ইসলামের সান্নিধ্যে আসেন এবং তাঁর প্রেরণাতেই শৈবাল সংগ্রহে ঘুরে বেড়ান বিভিন্ন জলমগ্ন এলাকায়সেইসব বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে শিশুদের জন্য কিছু একটা লেখার কথা ভাবতে থাকেনকিন্তু বেশি দূর আগায় নামস্কো-প্রবাসে আবুল মোমেনই তার এই ভাবনাকে উস্কে দেনশুরু হয় পাণ্ডুলিপি তৈরির কাজ তার প্রস্তুতিও যথেষ্ট গবেষণাসাধ্যঅনেক বই-পুস্তক, জার্নাল ঘাঁটাঘাটি করেনএই কল্প-গল্পের মূল নায়কের মডেল খোঁজেনকল্পনা ও বাস্তবের মিশেলে তৈরি হয় নায়ক তজব তরফদারতিনি প্রতিদিনই নানান জটিল তত্ত্ব নিয়ে লেখকের কাছে হাজির হনতার হাতে থাকে একটি চৌকা বাক্স তার বোতাম টিপেই রাজ্যের অঙ্ক কষেন তিনিএই অঙ্ক ভবিষ্যৎ প্রজন্মের উন্নত চাষাবাদের নির্ভুল তথ্য দিতে পারেএই আজব লোকটি কাজ শেষে কোথায় চলে যায় তা আর জানেন না লেখকহঠাৎ করেই আবার হাজির হয়তার বিশেষ কম্পিউটারে হিসাব করে সে বলে, তোমাদের নিষ্ঠুরতার কারণে পৃথিবী আবার নূহর প্লাবনের মতো তলিয়ে যাবে একদিন এই অদ্ভুত লোকটিকে আর খুঁজে পান না লেখকলেখক বনে প্রবেশ করেনসঙ্গে পরিবারের দীর্ঘদিনের সঙ্গী রোগা কপ্চে আর শোভা বুড়োপ্রকৃতির রহস্যময়তা তাকে যেন পেয়ে বসেযেন নানা আবিষ্কারের নেশায় ছুটে চলামুগ্ধ আবেশে পাখির দিকে চেয়ে থাকা, বনের নির্জনতায় বসে আকাশ-পাতাল ভাবা, এভাবেই সময় গড়িয়ে যায়প্রকৃতির বন্ধু শোভা বুড়োও একদিন অজানার উদ্দেশ্য পাড়ি জমায়এই গ্রন্থে আর আছে লেখকের অতি আদরের প্রাণীদের কথাতার সমস্ত ভালোবাসাই যেন একাকার হয়ে আছে এখানেগহন কোনো বনের ধারে প্রকৃত অর্থে প্রকৃতি ও পরিবেশের এক শৈল্পিক বয়ান

দ্বিজেন শর্মা শুধু ডারউইনবাদে বিশ্বাসীই নন, ডারউইনের ভাবশিষ্যওএই অনুরক্তি থেকেই বিবর্তনবাদ ও অন্যান্য আবিষ্কারে তাঁর আগ্রহ ও বিশ্লেষণ প্রশংসনীয়ডারাউইনকে আমাদের কাছে যথাযথভাবে উপস্থাপন করতে চান বলেই তাঁর নানা প্রসঙ্গে তিনটি গ্রন্থ রচনা করেন যার অন্যতম চার্লস্ ডারউইন ও প্রজাতির উৎপত্তি এটি মূলত তাঁর বিখ্যাত ঙৎরমরড়হ ড়ভ ঝঢ়বপরবং গ্রন্থের সংক্ষেপণবিশাল কলেবরের মূল গ্রন্থ থেকে চমৎকারভাবে প্রকৃত বিষয় ছেঁকে আনা জটিল ও দুঃসাধ্যএ ক্ষেত্রে অঙ্গহানির আশঙ্কা থাকলেও এখানে তা হয়নিগ্রন্থে বিজ্ঞানজগতের ধ্যান-ধারণার পরিপ্রেক্ষিতে প্রজাতির উৎপত্তি সংক্রান্ত বৈজ্ঞানিক ভাবনার ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করেছেন লেখককিশোরপাঠ্যের কথা বিবেচনায় রেখে পাণ্ডুলিপি তৈরিতে হাত দিলেও শেষ পর্যন্ত তা বজায় রাখা সঙ্গত মনে করেননি কারণ বিতর্কিত মতবাদ শিশুদের কচিমনে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারেতবে ডারউইন : বিগল্-যাত্রীর ভ্রমণকথায় এই অভাব কিছুটা হলেও ঘুচিয়েছেনএখানেও অসাধ্য সাধন করেছেন দ্বিজেন শর্মা৪৮৯ পৃষ্ঠার বৃহৎ কলেবরের ঠড়ুধমব ড়ভ ঃযব ইবধমষব গ্রন্থের সারসংক্ষেপ তুলে এনেছেন মাত্র ৮৮ পৃষ্ঠায়এই গ্রন্থের মাধ্যমে ছোটরা ডারউইনের ভ্রমণ-বৃত্তান্ত সম্পর্কে জানতে পারবেশুধু ভ্রমণই নয়, বৈচিত্র্যময় ভূদৃশ্যের অনবদ্য বর্ণনা এবং নানা দেশের তৎকালীন সামাজিক অবস্থার আকৃষ্টকর উপস্থাপনও বইটির অতিরিক্ত সম্পদবিশেষত্বের কারণে বইটি গদ্য শাখায় নুরুল কাদের শিশুসাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়ছোটদের জন্য লেখা কল্প-গল্প এমি নামের দুরন্ত মেয়েটি সত্যিই তাঁর কল্পলোকের দূরদর্শী ভাবনাকে উপস্থাপন করেভবিষ্যৎ শিশু এমিকে তিনি অত্যন্ত চৌকস চরিত্রে তুলে ধরেছেনযে অল্প বয়সেও অনেক জটিল বিষয় বুঝতে পারেএখানেও নানা বর্ণনায় প্রকৃতি এসেছে    প্রবলভাবেএছাড়াও গাছের কথা ফুলের কথা, ফুলগুলি যেন কথা ছোট-বড় সব বয়সী পাঠকের জন্যই আকরগ্রন্থ

দ্বিজেন শর্মা সবসময় শিশুই থাকতে চানএ জন্যই সাঁ-এক্সুপেরির ছোট্ট রাজকুমারের সঙ্গে তার সখ্যতা গড়ে ওঠেপ্রকৃতির সঙ্গে মিতালি পাতিয়ে যাঁর দিন কাটে এবং যে শুধু স্বপ্নই দেখেতিনিও স্বপ্ন দেখেই কাটাতে চান বাকি সময়গুলো

লেখক : নিসর্গী

 
কুইজ
সায়েন্স ফিকশন
বিজ্ঞান প্রজন্ম
 বিজ্ঞান জিজ্ঞাসা
স্বাস্থ্য ও চিকিত্সা
উদ্ভাবন
পরিবেশ
 সায়েন্স টুন
 কম্পিউটারজগত
 দেশের খবর
 প্রযুক্তি অনলাইন
 মনোবিজ্ঞান
 বিজ্ঞান বিশ্বের খবর
 অন্যান্য রচনা
 পার্শ্ব রচনা
 বিশেষ রচনা
হোমপেজ
 প্রচ্ছদ রচনা